শুল্ক ছাড় চেয়ে এ বার মোদীর দ্বারস্থ টেসলা

আমদানি করা বৈদ্যুতিক গাড়ির শুল্ক কমাতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে আর্জি টেসলার। বৈদ্যুতিক গাড়ি ওপর অতিমাত্রা শুল্কের কারণেই এখনো ভারতে তাদের গাড়ি আনা হচ্ছে না বলে জুলাইয়ে জানিয়েছিলেন টেসলার সিইও ইলন মাস্ক। এ শুল্ক কমানোর জন্য কেন্দ্রে আলোচনাও করেছেন তিনি।

চারটি সূত্রের খবর অনুসারে, গত মাসে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরের কর্তাদের সঙ্গে দেখা করে সেই একই দাবি জানিয়েছেন আমেরিকার বৈদ্যুতিক গাড়ির প্রতিষ্ঠানটির অন্যতম কর্তা মনুজ খুরানাসহ অন্যেরা। সেই সঙ্গে নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে ইলন মাস্কের সাক্ষাতের ব্যবস্থা করার অনুরোধও জানিয়েছে টেসলা। তবে এ বিষয়ে উভয়পক্ষই কোনো কথা বলেনি।

সংশ্লিষ্টদের তথ্য মতে, সরকারি কর্মকর্তাদের মধ্যে অবশ্য টেসলার এ দাবি নিয়ে দ্বন্দ্ব রয়েছে। তাদের এক পক্ষের দাবি, টেসলাকে এ ছাড় দেওয়া হলে দেশীয় গাড়ি শিল্পের পক্ষ থেকে আপত্তি আসবে, যারা ইতিপূর্বেই বিভিন্ন খাতে বিপুল পরিমাণে বিনিয়োগ করেছে। তারা বলছেন, বাজারে বৈদ্যুতিক গাড়ির সংস্থা শুধু টেসলা থাকলে, না হয় এ ছাড় দেওয়া যেত; তবে এখন তা সম্ভব নয়।

এদিকে আরেক পক্ষের দাবি, আমদানি নয়, সরাসরি ভারতেই গাড়ি তৈরি করুক প্রতিষ্ঠানটি। গত মাসেই এই প্রশ্নই করেছিলেন সড়ক পরিবহনমন্ত্রী নিতিন গডকড়ী। তিনি বলেছিলেন, চীনে তৈরি গাড়ি ভারতে বিক্রি না করে, ভারতেই কারখানা চালু করা হোক।

বৃহস্পতিবার (২১ অক্টোবর) নীতি আয়োগের ভাইস চেয়ারম্যান রাজীব কুমারও একই কথা বলেন। তিনি বলেছেন, এ দেশেই বৈদ্যুতিক গাড়ি তৈরি করুক টেসলা। তারা শুল্কে যে ছাড় চাইছে, সেটিই প্রতিষ্ঠানটিকে দেওয়া হবে।

তবে ইলন মাস্কের দাবি করেছেন, এখানে কারখানা করতে হলে আগে গাড়ি আমদানির ব্যবসায় সাফল্য প্রয়োজন। ভারতে বৈদ্যুতিক গাড়ির অবকাঠামো নিয়েও তিনি প্রশ্ন করেন।

ভারতে এখন বিভিন্ন মাপকাঠির ওপর ভিত্তি করে আমদানিকৃত গাড়িতে ৬০ শতাংশ থেকে  ১০০ শতাংশ শুল্ক ধার্য করা হয়ে থাকে। পূর্বে সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয়কে চিঠি পাঠিয়ে টেসলা দাবি করেছিল, ৪০ হাজার ডলারের বেশি দামে গাড়ি ওপর প্রায় ১১০ শতাংশ শুল্ক ধার্য করা হয়। সেটি হ্রাস করে ৪০ শতাংশে করার অনুরোধ জানিয়েছিল তারা। এ সময় তারা দাবি করেছিল যে এতে কেন্দ্রের কোনো লোকসান হবে না।

বিশেষজ্ঞদের মতে, এই হারে শুল্কের কারণে ভারতে ব্যবসা করা টেসলার পক্ষে অলাভজনক। এবার সেই একই কথা প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে জানিয়েছে প্রতিষ্ঠানটির কর্তারা। সূত্রঃ সময় টিভি। সম্পাদনা ম/হ। রু ২২১০/১১ 

Related Articles